NarayanganjToday

শিরোনাম

পুলিশের এসআই স্ত্রী’র গাড়িতে মাদক পাচার করতেন স্বামী!


পুলিশের এসআই স্ত্রী’র গাড়িতে মাদক পাচার করতেন স্বামী!

বিলাস বহুল গাড়ি। গাড়িতে ‘পুলিশ’ লেখা স্টিকার। ভেতরে পুলিশ সদস্য না থাকলেও তার আইডি কার্ড থাকে গাড়িতে। আর এই গাড়ি নিয়ে পুলিশের এই সদস্যের স্বামী ঘুরে বেড়ায়। সম্প্রতি সেই গাড়িরসহ নারী পুলিশ সদস্যের স্বামী ৪০ কেজি গাঁজাসহ আটক হয়েছে র‌্যাবের জালে।

৬ মে বেলা ১১ টার দিকে উপজেলার গাউছিয়া-কুড়িল সড়কের কাঞ্চন পৌরসভার পশ্চিম কালাদী জামে মসজিদ এলাক থেকে র‌্যাব-১ এর সিপিসি-৩, পূর্বাচল ক্যা¤প সদস্যরা কালো রঙের একটি বিলাসবহুল জিপসহ দুজনকে আটক করে। তাদের কাছ থেকে ৪০ কেজি উদ্ধার করা হয়। গাড়িতে পুলিশ লেখা স্টিকার ছিল। আর ভেতরে এক নারী পুলিশ সদস্যের আইডি কার্ড ছিল।

গাঁজাসহ আটক দুজনের একজন হলেন ফতুল্লা থানাধিন হরিহরপাড়া আমতলা এলাকার বাসিন্দা বাহাউদ্দিন বাবুল (৩০)। তার সাথে ছিলেন গাড়ি চালক জামালপুরের ইলামপুর পশ্চিম কুলকান্দি জোদ্দারপাড়া এলাকার কোরবান আলীর ছেলে মো. মনির হোসাইন (২০)।

সূত্র জনায়, বাহাউদ্দিন বাবুল একজন ফার্নিচার ব্যবসায়ী। তার স্ত্রী বিলকিস আক্তার মিতু। তিনি হরিহরপাড়া এলাকার স্থায়ী বাসিন্দা। ২০১১ সালে পুলিশ কনস্টেবল হিসেবে চাকরিতে প্রবেশ করেন। বর্তমানে তিনি ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের একজন সাব ইন্সপেক্টর। রয়েছে আইসিটি বিভাগে।

সূত্র মতে, ফার্ণিচারের ব্যবসার আড়ালে মাদকের ব্যবসার সাথে জড়িয়ে পড়েন বাহাউদ্দিন বাবুল। স্ত্রী পুলিশ অফিসার। আর এই প্রভাবটাও এক্ষেত্রে প্রয়োগ করেন তিনি। নিজস্ব গাড়িতে পুলিশ স্টিকার লাগিয়েই মাদক পাচার করে থাকেন যা ৬ মে র‌্যাব-১ এর হাতে বিষয়টি ধরা পড়ে ৪০ কেজি গাঁজাসহ আটকের পর। র‌্যাবের জিজ্ঞাসাবাদে প্রথমিকভাবে বাবুল মাদক ব্যবসার সাথে জড়িত তা স্বীকারও করেছেন, সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এমনটাই জানিয়েছেন র‌্যাব-১ এর সিপিসি-৩, পূর্বাচল ক্যা¤প কমান্ডার মেজর আব্দুল্লাহ আল মেহেদী।

এদিকে বিপুল পরিমাণের গাঁজাসহ আটকের পর স্বামীকে ছাড়ানোর জন্য সম্ভাব্য সব জায়গাতেই দৌঁড়ঝাঁপ শুরু করেন পুলিশের ওই সাব ইন্সপেক্টর বিলকিস আক্তার মিতু। একদিকে নিজের চাকরি অন্যদিকে স্বামী, এই দুই বাঁচাতে এখন তিনি মরিয়া হয়ে উঠেছেন। পাশাপাশি পুরো বিষয়টিকেই ধামাচাপা দিতে তৎপরতা চালাচ্ছেন।

এ প্রসঙ্গে সাব ইন্সপেক্টর বিলকিস আক্তার মিতুর সঙ্গে নারায়ণগঞ্জ টুডে’র পক্ষ থেকে যোগাযোগ করা হলে গাড়িটি তার ব্যক্তিগত গাড়ি বলে স্বীকার করলেও তিনি বলেন, তার স্বামী মাদক ব্যবসায়ী না। কিন্তু কীভাবে কী হয়েছে তিনি তা নিজেও জানেন না। তার দাবি, তার স্বামী একজন ফার্নিচার ব্যবসায়ী।

এ ব্যাপারে রূপগঞ্জ থানা পুলিশের অফিসার-ইন-চার্জ (ওসি) মাহমুদুল হাসান নারায়ণগঞ্জ টুডে’কে বলেন, এ ঘটনায় র‌্যাব বাদী হয়ে মামলা করেছেন। তাদের কাছ থেকে ৪০ কেজি গাঁজা পাওয়া গেছে। বাহাউদ্দিন বাবুলের স্ত্রী কি করেন তা জানা নেই। পুলিশের আইডি কার্ড গাড়িতে পওয়া গিয়েছিল কিনা সেটি আমার নলেজে নেই। বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

৮ মে, ২০২০/এসপি/এনটি

উপরে