NarayanganjToday

শিরোনাম

খোরশেদের জনপ্রিয়তায় ভীত আইভী?


খোরশেদের জনপ্রিয়তায় ভীত আইভী?

বর্তমান সাংসদ সেলিম ওসমান কাউন্সিলর খোরশেদকে ‘নারায়ণগঞ্জের বীর বাহাদুর’ আখ্যা দিয়েছিলেন। অন্যদিকে সাবেক সাংসদ মুহাম্মদ গিয়াসউদ্দিন একই ব্যক্তিকে ‘সুপার হিরো’ বলেছেন। চলমান সঙ্কটে করোনা এবং করোনা উপসর্গ নিয়ে মারা যাওয়া ব্যক্তিদের  দাফন ও দাহ করার মত মানবিক কাজের জন্য খোরশেদকে তারা এসব উপাধি দেন।

শুধু তারাই নন, কাউন্সিলর খোরশেদ একজন বিএনপি নেতা হওয়ার পরও তার কর্মকাণ্ডকে মানবিক উল্লেখ করে, ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরাও ইতোপূর্বে খোরশেদের প্রশংসা করে ফেসবুকে স্ট্যাটাসও দিয়েছেন।

এছাড়াও খোরশেদের এই মহতী কাজকে হাইলাইটস করে স্থানীয় থেকে শুরু করে জাতীয় দৈনিক ও নিউজ পোর্টালগুলো বিশেষ সংবাদও প্রকাশ করেছে। এমনকী বেসরকারি টিভি চ্যানেলগুলোতেও গুরুত্ব দিয়ে কাভারেজ করা হয়েছে খোরশেদকে। এর পাশাপাশি আন্তর্জাতিক মিডিয়া বিবিসি’তেও কাভারেজ পেয়েছেন এই কাউন্সিলর।

তবে, তার এসব গুণাবলিতে উচ্ছ্বসিত নন নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন মেয়র ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভী। তিনি এককভাবে খোরশেদকে কৃতিত্ব দেননি। সব কাউন্সিলরাই সৎকারে সাহায্য করেছেন মন্তব্য করে মেয়র দাবি করেছেন, লাশ সব কাউন্সিলরই দাফন করছে, সৎকার করছে। কেউ মিডিয়া কাভারেজ বেশী পাচ্ছে, কেউ পাচ্ছেনা। যারা শহরে আছেন তারাই প্রাধান্য পাচ্ছেন, অন্যরা সেভাবে পাচ্ছেন না।

বুধবার (২৯ এপ্রিল) দুপুরে নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন চত্বরে ১০ টাকা কেজি মূল্যে ওএমএসের চাল বিতরণের উদ্বোধন শেষে প্রেস ব্রিফিংয়ে গণমাধ্যমকে তিনি ওই তথ্য জানান।

শুধু তাই নয়, মৃতদের দাহ দাফন প্রসঙ্গে বলতে গিয়ে মেয়র আইভী সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর আফরোজা হাসান বিভার নাম উচ্চারণ করলেও খোরশেদের নাম একবারও উচ্চারণ করেননি। পাশাপাশি একই প্রসঙ্গে বলতে গিয়ে তিনি বলেছেন, আমাদের কবরস্থানে নিজস্ব কমিটি আছে। গোর করার জন্য কমিটি আছে। দাফন কাফন করার জন্য কমিটি আছে। শ্মশানেও কিন্তু আমাদের নিজস্ব কমিটি আছে। যত লাশ দাহ করা হচ্ছে সেটাও কিন্তু আমাদের ডোম সেটা করছে। কাউন্সিলররা সেখানে সহযোগিতা করছে। 

সকল কাউন্সিলরদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে আইভী আরও বলেন, যেখানে আত্মী স্বজন, মা তার ছেলের লাশ ধরতে পারছে না। ভাই তার বোনকে ধরতে পারছে না। সেখানে আমার কাউন্সিলররা যেয়ে বাড়ি থেকে লাশ বের করে এনে দাফন করছে, দাফনের ব্যবস্থা করছে। এর পিছনে সব ধরণের সহযোগিতা করছে সিটি করপোরেশন।

এদিকে মেয়র আইভী এমন মন্তব্যের পর থেকে শহর ও শহরতলীজুড়ে এ নিয়ে শুরু হয়েছে ব্যাপক আলোচনা। বলা হচ্ছে, খোরশেদ ইতোমধ্যে নিজস্ব স্বেসেবক টিম গঠন করে ৩৫ এর অধিক মৃতদেহের সৎকার করেছেন। তিনি নিজেও দাবি করেছেন এ সৎকার তিনি ও তার টিম করছেন। তারপরও আইভী সৎকার প্রসঙ্গে যা বলছেন তাতে বোঝা যাচ্ছে, এখানে কাউন্সিলর খোরশেদের একক কোনো কৃতিত্ব নেই! তাই প্রশ্ন উঠেছে, এতদিন খোরশেদ যে দাবি করে আসছিলেন সেসব কি মিথ্যা?

আবার কেউ কেউ বলছেন, চলমান পরিস্থিতিতে মৃত দেহের সৎকার করে বেশ জনপ্রিয় হয়ে উঠেছেন কাউন্সিলর খোরশেদ। কেউ কেউ তাকে আগামী দিনে মেয়র হিসেবেও দেখতে চেয়ে স্ট্যাটাস দিয়েছেন। তাহলে কি খোরশেদের এই জনপ্রিয়তা ভীত মেয়র আইভী, এমন প্রশ্নও উঠেছে অনেকের মধ্য থেকে।

২৯ এপ্রিল, ২০২০/এসপি/এনটি

উপরে