NarayanganjToday

শিরোনাম

হাইকোর্টের রায়ে জুয়া নিষিদ্ধ : যা বললেন নারায়ণগঞ্জ ক্লাব সভাপতি


হাইকোর্টের রায়ে জুয়া নিষিদ্ধ : যা বললেন নারায়ণগঞ্জ ক্লাব সভাপতি

হাইকোর্টের এক রায়ে শহরের অভিজাত ক্লাব হিসেবে পরিচিত ‘নারায়ণগঞ্জ ক্লাবে’ টাকার বিনিময়ে জুয়া খেলা নিষিদ্ধ করা হয়েছে। এই রায়ে নগরীর অনেকেই সন্তোষ প্রকাশ করেছেন। বলেছেন, এটি একটি ঐতিহাসিক রায়।

১০ ফেব্রæয়ারি হাইকোর্টের বিচারপতি শেখ হাসান আরিফ ও বিচারপতি মো. মাহমুদ হাসান তালুকদারের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ এ রায় দেন। একই সঙ্গে দেশের আরও ১২ টি অভিজাত ক্লাবেও টাকার বিনিময়ে জুয়া খেলা বন্ধের আদেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট।

তবে, কেউ কেউ প্রশ্নে তুলে বলেছেন, ক্লাবটি অত্যধুনিক সিকিউরিট থাকে। সর্বসাধারণের জন্য উন্মুক্ত নয়। পুলিশী অভিযান চললেও ক্লাবের ভেতরে আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারি বাহিনী প্রবেশ করতে করতে জুয়াড়ি দল নিজেদের সামলে নিতে পারবেন। পুলিশ বা সংশ্লিষ্ট সংস্থার কেউ আর কিছু খুঁজে পাবে না। তাহলে, এখানকার জুয়া খেলা বন্ধে প্রশাসন কতটা ভূমিকা রাখতে পারবে?

এদিকে ক্লাবটিতে জুয়া খেলা নিষিদ্ধ করে হাইকোর্ট যে রায় দিয়েছেন, এতে নগরবাসী যারপরনাই খুশি হয়েছেন। বিশেষ করে ক্লাব সদস্যদের কোনো কোনো পরিবার এ নিয়ে ভীষণ রকম সন্তুষ্টি প্রকাশ করেছেন এবং এই রায় যেন আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারি বাহিনী যথাযথ পালন করেন সে ব্যাপারে সংশ্লিষ্টদের প্রতি অনুরোধও জানিয়েছেন।

নারায়ণগঞ্জ ক্লাব সভাপতি তানভীর আহমেদ টিটু নারায়ণগঞ্জ টুডে’কে বলেন, আমাদের ক্লাবে হাউজি বা ডাইস জাতীয় কোনো জুয়া খেলা নেই। অনেক আগে হাউজি হত। সেটি বন্ধ হয়েছে। এখন হয়তোবা কেউ কেউ সময় কাটানোর জন্য প্লানকার্ড খেলে থাকতে পারে। সেটি আসলে জুয়া নয়, যে অর্থে বলা হচ্ছে। তারপরও মহামান্য হাইকোর্টের নির্দেশ সবার উপরে।

তিনি আরও বলেন, আমি ইতোমধ্যে নোটিশ তৈরি করেছি। সকল মেম্বারদেরকেই সেটি জানিয়ে দেব। আগে পরে যদি কেউ টাইম পাস করার জন্যও কার্ড খেলে থাকেন, যাতে এখন থেকে আর সেটি কেউ না খেলেন। এরপরও যদি আমাদের চোখে তেমন কিছু পড়ে তাহলে ক্লাবের নিয়মতান্ত্রিক ভাবে, গঠনতন্ত্র মোতাবেক ব্যবস্থা আমরা গ্রহণ করবো।

নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানা পুলিশের ইন্সপেক্টর (তদন্ত) জয়নাল আবেদীন জানিয়েছেন, পত্রিকায় এই সংক্রান্ত সংবাদ দেখেছি। এখনও আদালতের রায়ের কপি হাতে পাইনি। পেলে আদালতের নির্দেশনা অনুযায়ি প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবো। তবে, শুধু এখানেই নয়, যেখানেই জুয়া খেলা হোক না কেন, সেটির ব্যাপারে আমরা ব্যবস্থা নেব।

প্রসঙ্গত, ২৩ জানুয়ারি নারায়ণগঞ্জ ক্লাবসহ দেশের ১৩টি ক্লাবে টাকার বিনিময়ে জুয়া খেলা বন্ধে জারি করা রুলের ওপর চ‚ড়ান্ত শুনানি শেষ হয়। পরে ওই দিন রায় ঘোষণার জন্য ২৮ জানুয়ারি (মঙ্গলবার) দিন ধার্য করেন। পরবর্তীতে রায়ের দিন পিছিয়ে ৯ ফেব্রæয়ারি (রোববার) ধার্য করেন হাইকোর্ট।

১১ ফেব্রুয়ারি, ২০২০/এসপি/এনটি

উপরে