NarayanganjToday

শিরোনাম

জাপার সাংগঠনিক সম্পাদকের দুই ভাই বিএনপি নেতা


জাপার সাংগঠনিক সম্পাদকের দুই ভাই বিএনপি নেতা

এক ভাই সুলতান আহম্মেদ মোল্লা অপর ভাই নজরুল ইসলাম পান্না মোল্লা। তাদের একজন কুতুবপুর বিএনপির নেতা অপরজন ফতুল্লা থানা বিএনপির সদস্য সচিব। এই দুই ভাইয়ের মধ্যবর্তী তথা সুলতানের ছোট এবং পান্নার বড় ভাই হচ্ছেন ছালাউদ্দিন মোল্লা। তিনি পেয়েছেন জাতীয় পার্টির সাংগঠনিক সম্পাদক পদ!

২৯ জানুয়ারি পার্টির চেয়ারম্যান ও সংসদে বিরোধী দলীয় উপনেতা জিএম কাদের ছালাউদ্দিন খোকা মোল্লাকে সাংগঠনিক সম্পাদক হিসেবে ঘোষণা দেন।

সূত্র বলছে, কুতুবপুর মোল্লা বাড়ি ওই তিনজনই রাজনীতিতে জড়িত। তাদের ধ্যান জ্ঞানই হচ্ছে রাজনীতি। তবে, সুলতান আহম্মেদ মোল্লা যখন রাজনীতি শুরু করেন তখন অপর দুই ভাই রাজনীতি করতেন না। সুলতান শুরু থেকেই বিএনপির রাজনীতির সাথে সম্পৃক্ত। সাবেক সাংসদ মুহাম্মদ গিয়াসউদ্দিন অনুসারি।

নজরুল ইসলাম পান্না মোল্লা রাজনীতিতে প্রকাশ্যে আসেন শাহ আলমের মাধ্যমে। কুতুবপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান হওয়ার মনঃবাঞ্ছা নিয়েই তিনি এই পথে আসেন। প্রথমে ছিলেন কুতুবপুর ইউনিয়ন বিএনপির সহসভাপতি। এটিও পেয়েছিলেন শাহ আরমের বৌদলতে। বর্তমানে তিনি ফতুল্লা থানা বিএনপির সদস্য সচিব। এই পদটিও তিনি পেয়েছেন শাহ আলমের বৌদলতে।

এছাড়াও পান্না মোল্লা কুতুবপুর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে দুই দুবার চেয়ারম্যান হিসেবে নির্বাচন করেছিলেন দলীয় সমর্থনে। মনিরুল আলম সেন্টুকে সমর্থন না দিয়ে শাহ আলম পান্নাকে সমর্থন দেন। তবে, দুইবারই সেন্টুর সাথে বিপুল ভোটে পরাজিত হন পান্না। এই পান্না মোল্লাকে কুতুবপুরসহ বিভিন্ন স্থানে অস্ত্রবাজ হিসেবেই মানুষ চিনে থাকেন। একবার নিজ দলীয় লোকদের মিছিলে গুলি বর্ষণসহ হামলা চালানো হয়েছিলো তার নেতৃত্বে।

এদিকে ছালাউদ্দিন খোকা মোল্লা স্বপ্নে বিভোর তিনি এমপি হবেন। কিন্তু তার অন্তরায় সাংসদ শামীম ওসমান। কেননা, জাতীয় পার্টি মহাজোটের অংশ। সে হিসেবে গত দুবার মনোনয়ন কিনে একবার পেলেও শেষ পর্যন্ত আর মাঠে টিকে থাকতে পারেননি তিনি। আবার কর্মী সমর্থক দিয়েও বলিয়ান নন ছালাউদ্দিন। ভোট ব্যাঙ্ক বলতে তার তেমন কিছুই নেই। তারপরও তিনি এবার হয়েছেন জাতীয় পার্টির সাংগঠনিক সম্পাদক।

৩০ জানুয়ারি, ২০২০/এসপি/এনটি

উপরে