NarayanganjToday

শিরোনাম

ক‌রোনায় স্বেচ্ছাসেবী তরুণ নি‌জেই আক্রান্ত


ক‌রোনায় স্বেচ্ছাসেবী তরুণ নি‌জেই আক্রান্ত

 

সোনারগাঁয়ে স্বেচ্ছাসেবক হিসেবে কাজ করতে গিয়ে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন অমিত হাসান মিরাজ নামের এক তরুণ। করোনাভাইরাসের ভয়াবহতার বিষয়ে জনগণকে সচেতন, অসহায় মানুষের মাঝে উপজেলা প্রশাসনের হয়ে ত্রান সামগ্রী বিতরণ করার কাজে নিয়োজিত থাকার মধ্যে আক্রান্ত তিনি।

বৃহস্পতিবার (২৩ এপ্রিল) দিনে জ্বর, ঠান্ডা ও কাশি দেখা দিলে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মাধ্যমে নমুনা সংগ্রহ করে ঢাকা মেডিকেল কলেজের ল্যাবে পাঠানো হলে মঙ্গলবার তার  রিপোর্ট আসলে উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা পলাশ কুমার সাহা জানান, ওই তরুণের করোনা পজিটিভ।

গত ২৩ তারিখের ২৬ টি নমুনার মধ্যে ১৮ টি পাওয়া গেছে। যার মধ্যে ৭টি কোভিড-১৯ পজেটিভ এবং ১১টি নেগেটিভ। আর ৭ জনের মধ্যে বৈদ্যেরবাজার ইউনিয়নের একজন স্বেচ্ছাসেবী রয়েছেন। সোনারগাঁ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ সাইদুল ইসলামের নেতৃত্বে উপজেলার অসহায় ও দুস্ত মানুষকে সচেতন ও তাদের ত্রান সহায়তা দিতে একজন স্বেচ্ছাসেবী হিসেবে নাম লিখিয়েছিলেন বৈদ্যেরবাজার ইউনিয়নের মনারবাগের মো.এরশাদ আলীর একমাত্র সন্তান অমিত হাসান মিরাজ।

নিজেকে মানবিক কাজে নিয়োজিত করেছিলেন অনেক আগেই। দেশ ও দেশের মানুষের জন্য কাজ করে এমন বেশ কয়েকটি সংগঠনের সাথে যুক্ত রয়েছেন তিনি। বর্তমানে ব্লাড ফর নারায়ণগঞ্জ নামে একটি স্বেচ্ছায়, বিনামূল্যে রক্তদাতাদের সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক হিসেবে কাজ করছেন। অমিত স্বেচ্ছাসেবী কাজের সাথে যুক্ত থেকেই কোভিড-১৯ বা করোনা পজিটিভ হয়েছেন।

এ খবর সোনারগাঁও উপজেলায় ছড়িয়ে পড়লে অন্য স্বেচ্ছাসেবকদের মধ্যে উদ্বেগ দেখা দিলেও তিনি হতাশ নন। হাল ছাড়বেন না। করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়াই অব্যাহত রাখারও প্রত্যয় ব্যক্ত করেছেন তিনি।১৮ ই মার্চের পর থেকেই উপজেলা প্রশাসনের সহযোগিতায় জীবাণুনাশক ছেটানোর মেশিন, পিপিই, হ্যান্ড গ্লাভস, মাস্ক বিতরণ ও সচেতনতা বৃদ্ধির কাজে নামেন উপজেলার প্রায় ৫ শত স্বেচ্ছাসেবী। সুবিধাবঞ্চিত মানুষের দিকে সেবার হাত বাড়িয়ে দেন। রাস্তাঘাট, বাসাবাড়ি, অফিস, মসজিদ, মন্দির, রাস্তায় চলমান গাড়ি, অ্যাম্বুলেন্সসহ বিভিন্ন যানবাহন জীবাণুমুক্ত করতে থাকে স্বেচ্ছাসেবক দলটি। তাঁদের এই উদ্যোগ সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমেও প্রশংসা পায়। তবে তাদের মধ্যে একজন সহযোদ্ধা করোনায় আক্রান্ত হওয়ার খবর ছড়িয়ে পড়লে অন্য স্বেচ্ছাসেবকদের মধ্যে উদ্বেগ দেখা দেয়। তবে তারা হতাশ নন বলে জানান।

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ওই তরুণ অমিত হাসান সোনারগাঁ উপজেলার বৈদ্যেরবাজার ইউনিয়নে নিজ বাসায় অবস্থান করছেন জানিয়ে বলেন, ‘যদি বেঁচে ফিরি, দেখা হবে। আবার নামব রাস্তায়, অসহায় মানুষের সেবায়, কথা দিলাম।’

সোনারগাঁ মোগড়াপাড়া ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি শফিকুল ইসলাম সাগর বলেন,সবাই তাকে কম আর বেশি চিনেন কারন সে সব সময় মানব সেবা করে গেছেন মানুষের বিপদে পাশে থাকতে বেশি পছন্দ করতেন । সে ব্লাড ফর সোনারগাঁ শাখার সাধারণ সম্পাদক এবং দেশের এই দুঃসময়ে সে সোনারগাঁ উপজেলা নিবাহী অফিসার স্যার এর সাথে স্বেচ্ছাসেবীর কাজে নিয়োজিত ছিলেন অথছ আজ সে করোনা আক্রান্ত । আল্লাহ তায়ালা কাছে আমাদের প্রাণ প্রিয় বন্ধু কে যেন তাড়াতাড়ি ভাল করে দেয় এবং সে মানবতার কাজ সে আবারও করতে পাড়ে এই দোয়া করি।

এদিকে এড.মো: ফিরোজ মিয়া বলেন, সোনারগাঁ উপজেলা ছাত্রলীগের সহ-সম্পাদক প্রিয় ছোট ভাই বীর যোদ্ধা অমিত হাসান মিরাজ করোনা প্রতিরোধে দিনরাত অক্লান্ত পরিশ্রম করে তার করোনা ভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। যতটুকু জানতে পেরেছি গতরাতেও বীরযোদ্ধা অমিত তার সহযোদ্ধাদের নিয়ে এক বৃদ্ধ মা'কে বাঁচাতে রাত ২ টায় ইনসাফ হসপিটাল (মোগরাপাড়া, চৌরাস্তায়) রক্তদান করেছেন। আমি আল্লাহ্'র কাছে তার সুস্থ্যতার জন্য দোয়া করি, আবার যেন মানবসেবায় ফিরে আসতে পারে। আমিন। আমি উপজেলা প্রশাসনকে বলবো অমিত হাসান মিরাজের নামের আগে বীরযোদ্ধা উপাদি যোগ করার জন্য।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো.সাইদুল ইসলাম বলেন, সোনারগাঁ উপজেলা সুরক্ষিত রাখতে এবং অসহায় ও খেটে খাওয়া মানুষের পাশে থাকতে স্বেচ্ছাসেবীরা নিজ নিজ অবস্থান থেকে তারা সর্বোচ্চ চেষ্টা করেছেন। আমরা করোনায় আক্রান্ত ওই তরুণের পাশে আছি, নিয়মিত তার খোঁজখবর নেওয়া হচ্ছে।’

উপরে