NarayanganjToday

শিরোনাম

নারায়ণগঞ্জে আরও ১০৭ জন আক্রান্ত, একদিনে ১৯১!


নারায়ণগঞ্জে আরও ১০৭ জন আক্রান্ত, একদিনে ১৯১!

নারায়ণগঞ্জে কয়েক ঘণ্টার ব্যবধানে আরও ১০৭ জনের দেহে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে বলে খবর দিয়েছে আইইডিসিআর। এ নিয়ে জেলায় মোট আক্রান্তে সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৮৪৯ জনে। তবে, আইইডিসিআরের তথ্য মতে, এখানে মৃতের সংখ্যা ৩৯।

মঙ্গলবার (২৮ এপ্রিল) সন্ধ্যার দিকে আইইডিসিআর তাদের নিজস্ব ওয়েব সাইটে এদিনের আপডেটে নারায়ণগঞ্জের ওই তথ্য নিশ্চিত করেছে।

এর আগে এদিন সকালের দিকে নারায়ণগঞ্জ জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ থেকে সর্বশেষ ২৪ ঘণ্টার হিসেবে জানানো হয়েছিল, এখানে নতুন করে ৮৪ জনের দেহে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। স্থাস্থ্য বিভাগের এই তথ্য নিয়ে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ছিল ৭৪২ জন।

তবে, সন্ধ্যার দিকেই এই সংখ্যাটা এক লাফে ৮৪৯ জনে উঠে যায়। যা এই জেলায় একদিনে আক্রান্তের সর্বোচ্চ রেকর্ড। ইতোপূর্বে জেলায় একদিনে এত সংখ্যক আক্রান্তের খবর পাওয়া যায়নি। ফলে, এ খবর জেলাবাসীর মাঝে নতুন উদ্বেগের সৃষ্টি করেছে।

এদিকে জেলা স্বাস্থ্য বিভাগের ৮৪ এবং আইইডিসিআরের ১০৭ মিলিয়ে এদিনে প্রাপ্ত মোট আক্রান্তের হিসেবেটা যে কারো চোখই কপালে উঠার মত। কেননা, এই হিসেবটা ১৯১ জনে দাঁড়ায়। যা মোটেও স্বাভাবিক নয়।

এদিকে জেলা স্বাস্থ্য বিভাগের ৮৪ এবং আইইডিসিআরের ১০৭ মিলিয়ে গত ২৪ ঘণ্টার ব্যাবধানে জেলায় মোট আক্রান্তে হিসেবেটা যে কারো চোখই কপালে উঠার মত। কেননা, এই হিসেবটা ১৯১ জনে দাঁড়ায়। যা মোটেও স্বাভাবিক নয়।

এ ব্যাপারে জেলা সিভিল সার্জন ডা. মোহাম্মদ ইমতিয়াজ বলেন, জেলায় করোনায় আক্রান্ত বা মৃত্যুর বিষয়ে আইইডিসিআর থেকে আমাদের যে তথ্য দেয়া হয় আমার সেটাই অনুসরণ করি। সেটাই আমাদের নিজস্ব ওয়েব সাইটে প্রকাশ করি এবং গণমাধ্যমকে জানানই। আইইডিসিআরের দেয়া তথ্যের বাইরে গিয়ে আমরা কিছু বলতে পারব না।

তিনি আরও বলেন, একদিনে ১শ ৯১ জন আক্রান্ত হয়েছে বিষয়টি এমন নয়। গত বেশ কয়েকদিন যাবৎ নমুনা পরীক্ষার রিপোর্ট আসেনি। এ কয়দিনে বিপুল পরিমান মানুষের নমুনা সংগ্রহ করে আইইডিসিআরে পাঠানো হয়েছে। সেখানে সিরিয়াল থাকে। সারাদেশের নমুনা চাপের কারণে আমাদের জেলার নমুনা রিপোর্ট আসতে কয়েকদিন দেরি হয়ে থাকে। কয়েকদিনের নমুনার রিপোর্ট এক সাথে আসায় আক্রান্তের অংকটা বড় হয়ে গেছে। তবে আইইডিসিআরের তথ্যই সঠিক। তারা সন্ধ্যায় যে আপডেট দিয়েছে আজ রাতে সেটা আমাদের কাছে পাঠানো হবে। আমরা পরদিন সকালে সেটা ওয়েব সাইটে আপডেট করব।

২৮ এপ্রিল, ২০২০/এসপি/এনটি

উপরে