NarayanganjToday

শিরোনাম

সুনামগঞ্জে বিয়ের কথা পাকা করতে গিয়ে ফতুল্লার ৯ জন নিহত


সুনামগঞ্জে বিয়ের কথা পাকা করতে গিয়ে ফতুল্লার ৯ জন নিহত

হবিগঞ্জে একটি বিয়ের কথাবার্তা চূড়ান্ত করতে গিয়ে মর্মান্তি এক সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত হয়েছেন ফতুল্লার পাগলা এলাকার ৯ জন। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও ৪ জন। শুক্রবার (৬ মার্চ) সকাল ৭টার দিকে হবিগঞ্জের নবীগঞ্জ এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন, পাগলা মুসলিমপাড়া এলাকার মৃত আশরাফ আলীর ছেলে আইএফসিআই ব্যাংকের কর্মচারী আব্বাস উদ্দিন (৫৫), তার ছেলে ইমন (২৫), ছোট ছেলে রাব্বি (২০), একই এলাকার আবুল গণি তালুকদারের ছেলে মো. খলিলুর রহমান (২৫), মুসলিমপাড়া কুসুমবাগ এলাকার মৃত গিয়াসউদ্দিনের মেয়ে সুমনা আক্তার (৩৫), একই এলাকার তোতা খানের ছেলে ইমরান (১৬), আবুল হোসেনের ছেলে রাজিব (২৫), ঢাকা মতিঝিলের মজিবুর রহমানের স্ত্রী আসমা আক্তার (২৫), একই এলাকার হাজী মহসীন (৭০)। তাদের মধ্যে সুমনা আক্তার হাসপাতালে এবং বাকীরা ঘটনাস্থলেই মারা গেছেন। মরদেহগুলো উদ্ধার করে শেরপুর হাইওয়ে থানায় নিয়েছে পুলিশ।

আহতরা হলেন, বেলায়েত হোসেনের মেয়ে খাদিজা (৪), আবুল হোসেন (৫৫), রফিক (৪০), নাদিম (৩৫)। তাদেরকে ওসমানি মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

বিয়ের কথাবার্তা চূড়ান্ত করতে নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার পাগলা থেকে ১৩ জনের একটি দল সিলেটের সুনামগঞ্জের দিরাই এলাকায় যাচ্ছিলেন। ৫ মার্চ রাতে তারা পাগলা এলাকা থেকে রওনা হন। পথিমধ্যে হবিগঞ্জের নবীগঞ্জ উপজেলার কান্দিরগাঁও এলাকায় মাইক্রোবাসটি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে একটি গাছেন সাথে ধাক্কা লেগে ৯ জন নিহত ও আহত হন আরও চারজন। আহতদের সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

হতাহত সকলেই নারায়ংণগঞ্জ সদর উপজেলার ফতুল্লার পাগলা এলাকায় বসবাস করতেন। তারা বরিশালের বিভিন্ন এলাকার বাসিন্দা।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, সিলেটগামী একটি মাইক্রোবাস শুক্রবার সকাল ৭টায় ঢাকা-সিলেট মহাসড়কে নবীগঞ্জ উপজেলার কান্দিরগাঁও নামক স্থানে পৌঁছালে এর চালক নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফেলেন। একপর্যায়ে এটি রাস্তার পাশে গাছের সঙ্গে ধাক্কা লেগে দুমড়ে মুচড়ে যায়। এতে ঘটনাস্থলেই ৮ জন মারা যান। সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়ার পর মারা যান আরও একজন।

খবর পেয়ে হাইওয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে মরদেহগুলো উদ্ধার করে। আহতদের সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

শেরপুর হাইওয়ে থানার ওসি এরশাদুল হক ভূঁইয়া জানান, নিহতদের ৭ জনের পরিচয় জানা গেছে। বিভিন্ন জনের মোবাইল ফোনের মাধ্যমে তাদের পরিচয় নিশ্চিত হওয়া গেছে। তাদের বাড়ি বরিশালে। তারা নারায়ণগঞ্জের পাগলায় থাকতেন। সুনামগঞ্জের দিরাইয়ে একটি বিয়ে ঠিক করতে যাচ্ছিলেন। নবীগঞ্জ ফায়ার সার্ভিস কর্মীদের সহায়তায় লাশ উদ্ধার করা হয়েছে।

নবীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার জানান, ধারণা করা হচ্ছে তারা সিলেটে বেড়াতে যাচ্ছিলেন। কারও পরিচয় নিশ্চিত হওয়া যায়নি। তাদের পরিচয় নিশ্চিতের চেষ্টা করা হচ্ছে। আহতদের মধ্যে একজনের অবস্থা শঙ্কটাপন্ন। বাকিদের অবস্থাও আশঙ্কাজনক।

৬ মার্চ, ২০২০/এসপি/এনটি

উপরে