NarayanganjToday

শিরোনাম

পরকীয়ায় ঘর ছে‌ড়ে‌ছেন স্ত্রী, অ‌ভিমা‌নে দুই মে‌য়েসহ আত্ম‌গোপ‌নে স্বামী


পরকীয়ায় ঘর ছে‌ড়ে‌ছেন স্ত্রী, অ‌ভিমা‌নে দুই মে‌য়েসহ আত্ম‌গোপ‌নে স্বামী

অব‌শে‌ষে চাষাড়া থে‌কে দুই মে‌য়ে, স্ত্রীসহ ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী 'নি‌খোঁজ'র রহস্যজট খু‌লে‌ছে। ত‌বে, বিষয়‌টি নি‌খোঁজের ঘটনা ছিল না। পু‌লিশ জা‌নি‌য়ে‌ছে 'অাত্ম‌গোপন'।

২০ ফেব্রুয়া‌রি গভীর রাতে ক‌থিত নি‌খোঁ‌জের ওই চারজ‌নের ম‌ধ্যে তিনজন‌কে উদ্ধার ক‌রে‌ছে পু‌লিশ। শুক্রবার উদ্ধার হওয়া তোবারক‌কে পু‌লিশ হেফাজ‌তে নি‌য়ে তার দুই মে‌য়ে‌কে নানীর জিম্মায় রাখা হ‌য়ে‌ছে।

তারা হ‌লেন তোবারক হোসেন ও তার দুই স্কুল পড়ুয়া মেয়ে ফা‌রিয়া (৯) ও ফাহ‌মিদা (৬)।  তা‌রা রাজধানীর মিরপুরে খালার বাড়িতে আত্মগোপনে ছি‌লেন ব‌লে পু‌লিশ জা‌নি‌য়ে‌ছে। 

ত‌বে, এখনও সন্ধান মি‌লে‌নি ব্যবসায়ীর নি‌খোঁজ স্ত্রী মুক্তা অাক্তা‌রের। পুলিশ ধারণা কর‌ছে, পরকীয়ার টা‌নে মুক্তা ঘর ছে‌ড়ে‌ছেন। অার এই অ‌ভিমা‌নে দুই মে‌য়ে‌কে নি‌য়ে অাত্ম‌গোপন ক‌রে‌ছি‌লেন তোবারক।

তোবারক হো‌সেন স্ত্রী, সন্তান নি‌য়ে শহ‌রের চাষাড়া বা‌গে জান্নাত মহল্লায় সিরাজুল ইসলা‌মের বা‌ড়ির নিচতলায় ভাড়ায় বসবাস কর‌তেন এবং শহ‌রের বঙ্গবন্ধু সড়‌কের ফুটপাতে গার্মেন্টস পোশাক বিক্রি কর‌তেন। তি‌নি মিরপুর ব্লক বি গাবতলী ১ম কলোনী জব্বার হাউজিং বাড়ি নং ১৭ সি/ডি এলাকার রেজাউল হকের পুত্র। তোবারকের বাবা মা দুই জনই মারা গেছেন। তার এক খালা বর্তমানে মিরপুর সেকশন ৬ এর কেন্দ্রীয় মসজিদের বিপরীতে ভাড়া বাড়িতে থাকেন।

১৩ ফেব্রুয়ারি ব্যবসায়ী তোবারক, তার স্ত্রী, দুই মেয়ে নিয়ে মিরপুরে বেড়ানোর উদ্দেশ্যে চাষাড়ার বাসা থেকে বের হ‌য়ে নি‌খোঁজ হন। এ ঘটনার এক সপ্তাহ পর বুধবার মুক্তার মা বাদী হ‌য়ে সদর ম‌ডেল থানায় জি‌ডি ক‌রেন। এরপরই পু‌লিশ বিষয়‌টি গুরু‌ত্বের সা‌থে নি‌য়ে তদ‌ন্তে নে‌মে ওই তিনজন‌কে উদ্ধার ক‌রেন।

ঘটনার তদন্ত কর্মকর্তা সদর মডেল থানার উপ-পরিদর্শক মো. সাব্বির দুই মেয়েসহ ব্যবসায়ী তোবারককে উদ্ধারের বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, তোবারকের কাছ থেকে জানা গেছে মুক্তার সঙ্গে তার ঝগড়া হয়েছিল। এরপর মুক্তা তাকে বলেছে সে মার বাসায় চলে যাচ্ছে। কিন্তু সে তার মায়ের বাসায় যায়নি। স্ত্রী মুক্তা ঘর ছাড়ায় অভিমান করে তোবারকও তার দুই মেয়েকে নিয়ে খালার বাসায় আত্মগোপনে ছিলেন।

এ ব্যাপারে সদর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আসাদুজ্জামান বলেন, তোবারক কে জিজ্ঞাসাবাদ করে যে তথ্য পেয়েছি তাতে ধারণা করা হচ্ছে তার স্ত্রী মুক্তা কারো সাথে পরকীয়া সম্পর্কে জড়িয়ে পড়েছেন। এর জের ধরে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে ঝগড়া হওয়ায় স্ত্রী মুক্তা তার পরকীয়া প্রেমিকের সাথে পালিয়ে যেতে পারে।

তিনি বলেন, মুক্তার মোবাইল ফোনের সর্বশেষ অবস্থান চট্টগ্রামের কদমতলী ডিআইটি এলাকায় পাওয়া গেছে। আমরা সেখানে পুলিশ পাঠিয়েছি। সেখান কার পুলিশ প্রশাসনের সাথে আমরা যোগাযোগ রাখছি। আশা করছি স্বল্প সম্যের মধ্যেই নিখোঁজ মুক্তার সন্ধান বের করতে পারব।

উপরে