NarayanganjToday

শিরোনাম

বন্দরে একরাতে পাঁচ বাড়িতে ডাকাতি, সিআইডির জালে একজন


বন্দরে একরাতে পাঁচ বাড়িতে ডাকাতি, সিআইডির জালে একজন

বন্দরের এক রাতে পাঁচ ঘরে গণডাকাতি ও গুলি বর্ষণ করে তিনজনকে আহত করার ঘটনায় দায়ের করা মামলায় মাহফুজ রহমান আদনান (২৮) নামে এক ডাকাতকে গ্রেফতার করেছে নারায়ণগঞ্জ পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি)। 

১০ ফেব্রুয়ারি রাতে চাঁদপুরের মতলব থেকে তাকে আটক করা হয়। উত্তর মতলবের সুগন্ধি এলাকার আব্দুল হামিদের ছেলে। তার বিরুদ্ধে অন্তত ১৫ টি মামলা রয়েছে বলে জানিয়েছে সিআইডি।

এদিকে গ্রেফতার মাহফুজ রহমান আদানকে মঙ্গলবার (১১ ফেব্রুয়ারি) নারায়ণগঞ্জের সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট কাউছার আলমের আদালতে হাজির করা হলে সে তার দোষ স্বীকার করে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দিয়েছেন। সে বিচারকের কাছে জানিয়েছেন, ডাকাতি, জলদস্যুতা, চাঁদাবাজি, মাদক ব্যবসাসহ বিভিন্ন সন্ত্রাসী কর্মকান্ডের সাথে জড়িত রয়েছেন।

সিআইডির ইন্সপেক্টর গাজী মিজানুর রহমান গণমাধ্যমের কাছে এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, ৭ জানুয়ারি বন্দর থানায় দায়ের করা একটি মামলা সিআইডিকে হস্তান্তর করা হয়। পরে এই মামলা তদন্তে নামে সিআইডি। তদন্তকালে মামলায় আদনানের সম্পৃক্ত নিশ্চিত হয়ে চাঁদপুরের উত্তর মতলবে অভিযান চালিয়ে তাকে আটক করা হয়।

তিনি আরও বলেন, আদনানরা সংঘবব্ধ একটি ডাকাতদল। তারা ট্রলারযোগে নদীর উপকূলীয় এলাকার বসত বাড়িতে ডাকাতি করে থাকে। অনুরূপভাবে চলতি বছরের ৭ জানুয়ারি বন্দর উপজেলাতেও তাদের দল এক রাতে পাঁচ বাড়িতে ডাকাতি সংঘটিত করে। আদনানের বিরুদ্ধে বিভিন্ন থানায় ১০ থেকে ১৫ টি মামলা রয়েছে।

প্রসঙ্গত, চলতি বছরের ৭ জানুয়ারি দিবাগত রাত সাড়ে ৩টার দিকে উপজেলার চর ধলেশ্বরী গ্রামের জোনায়েদ মিয়ার বাড়িতে ২০ থেকে ২৫ জনের একটি ডাকাত দল হানা দেয়। এ সময় ডাকাতরা বাড়ির লোকজনকে অস্ত্রের মুখে জিন্মি করে জোনায়েদ, সিরাজুল, শাহ্ আলম, শফি মিয়া, সানোয়ার হোসেনের ঘর থেকে নগদ ১ লাখ ৬৫ হাজার টাকা, আড়াই ভরি স্বর্ণালঙ্কার ও একটি স্মাট মোবাইল ফোন লুট করে নিয়ে যায়। তাদের চিৎকারে আশেপাশের লোকজন এগিয়ে এলে ডাকাতরা তাদের লক্ষ্য করে গুলি ছুড়তে ছুড়তে মেঘনা নদী দিয়ে ট্রলার নিয়ে পালিয়ে যায়। এসময় শিশুসহ তিনজন গুলিবিদ্ধ হয়। তারা হলেন শিশু সাহেলা (১১), পিপন (৩২) ও নূর মোহাম্মদ (৫৫)।

১১ ফেব্রুয়ারি,২০২০/এমএ/এন

উপরে