NarayanganjToday

শিরোনাম

বিসিকে চাঁদাবাজি করতে গিয়ে গ্রেফতার দুই


বিসিকে চাঁদাবাজি করতে গিয়ে গ্রেফতার দুই

বিসিকের একটি গার্মেন্ট ফ্যাক্টরিতে চাঁদাবাজি করতে গিয়ে গ্রেফতার হয়েছেন দুই চাঁদাবাজ। ১ ফেব্রুয়ারি বিকেলের দিকে ফতুল্লা মডেল থানা পুলিশ তাদেরকে গ্রেফতার করে।

গ্রেফতাররা হলেন, মাসদাইর গুদারাঘাট এলাকার আ. জব্বারের ছেলে বাহাদুর হোসেন জনি ও শহরের আমলাপাড়া এলাকার কামরুল ইসলাম অন্তর। তাদের বিরুদ্ধে ফতুল্লা মডেল থানায় মামলা করেছেন মাসদাইর শেরে বাংলা রোড এলাকার মৃত গোলাম মোস্তফার ছেলে হায়দার আলী সুমন।

তিনি মামলা উল্লেখ করেছেন, গত ৮ জানুয়ারি থেকে সুমন ও তার বড় ভাই আনোয়ার হোসেন শাহ বিসিকে শাহ আমানত নামের নিটিং ফ্যাক্টরীর মালিক হিসেবে ব্যবসা পরিচালনা করছে। এর আগে তাদের ফ্যাক্টরীস্থলে এমটি নিটিং নামের একটি ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ছিলো। ফ্যাক্টরী চালু করার পর থেকেই বাহাদুর ও কামরুল ইসলাম অন্তরসহ কয়েকজন বিভিন্ন সময়ে চাঁদা দাবি করে। 

মামলায় আরও উল্লেখ করেন, ১ ফেব্রুয়ারি বিকেল ৪ টার দিকে ২/৩ জন সহযোগীসহ ওই দুজন দেশীয় অস্ত্র নিয়ে ফ্যাক্টরীর দারোয়ান তোফাজ্জলকে মারধর করে ভিতরে প্রবেশ করে। তারা আনোয়ার হোসেনের কাছে ১ লক্ষ টাকা চাঁদা দাবি করে। চাঁদা দিতে অস্বীকার করলে ভাইকে তারা অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে। ওই সময়ে আমি অফিসে ঢুকে প্রতিবাদ করলে আমাকেও এলোপাতাড়ি মারধর করে। এ সময়ে বাহাদুর আমার পকেট থেকে ২০ হাজার টাকা ছিনিয়ে নেয় ও কামরুল আমার ১৮ হাজার টাকা দামের মোবাইল সেট ছিনিয়ে নেয়। ফ্যাক্টরীর শ্রমিকরা এগিয়ে এসে প্রতিবাদ করলে ওরা শ্রমিকদের উপর চড়াও হয়। পরে শ্রমিকরা তাদের আটক করে।

সুমন জানিয়েছেন, ঘটনাটি ফতুল্লা মডেল থানা পুলিশ ও শিল্প পুলিশকে জানালে তারা ঘটনাস্থলে এসে দুইজনকে নিয়ে যায়। এ ঘটনায় থানায় মামলা হয়েছে। পুলিশ দুইজনকে কোর্টে প্রেরণ করেছে।

৩ ফেব্রুয়ারি, ২০২০/এসপি/এনটি

উপরে