NarayanganjToday

শিরোনাম

স্কুল ছাত্রীকে গণধর্ষণ, গ্রেফতার ছাত্রলীগ নেতাসহ রিমান্ডে দুজন


স্কুল ছাত্রীকে গণধর্ষণ, গ্রেফতার ছাত্রলীগ নেতাসহ রিমান্ডে দুজন

রূপগঞ্জে নবম শ্রেণির স্কুলছাত্রীকে তুলে নিয়ে গণধর্ষণের ঘটনায় দায়ের করা মামলায় গ্রেফতার তানভির ও ফয়সালকে দুদিনের রিমান্ডে নিয়েছে পুলিশ।

সোমবার (২০ জানুয়ারি) দুপুরের দিকে নারায়ণগঞ্জের জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট কাউছার আলমের আদালতে ৭ দিনের রিমান্ড আবেদন করলে শুনানি শেষে ওই রিমান্ড মঞ্জুর করেন বিচারক।

রিমান্ড মঞ্জুরের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন কোর্ট পুলিশের পরিদর্শক মো. আসাদুজ্জামান। তিনি বলেন, তানভির ও ফয়সালকে আদালতে হাজির করে ৭ দিনের রিমান্ড আবেদন করে পুলিশ। পরে শুনানি শেষে আদালত জিজ্ঞাসাবাদের জন্য দুদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

রূপগঞ্জ উপজেলার তারাবো পৌরসভার রূপসী এলাকার মৃত কবির হোসেনের ছেলে তানভির এবং ফয়সাল একই এলাকার বাদল মিয়ার ছেলে। ১৯ জানুয়ারি রাতে রাঙ্গামাটি থেকে তাদেরকে গ্রেফতার করে রূপগঞ্জ থানা পুলিশ। তাদের মধ্যে ফয়সাল তারাব পৌর ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক।

রূপগঞ্জ থানা পুলিশের পরিদর্শক (তদন্ত) জসিম এর সত্যতা স্বীকার করে বলেন, ধর্ষণ মামলার আসামি তানভীর বেশকিছুদিন ধরেই পলাতক ছিল। পরে মোবাইল ট্রেকিংয়ের মাধ্যমে রাঙ্গামাটি তার অবস্থান নিশ্চিত হয়ে অভিযান চালায় পুলিশ। এবং গ্রেফতার করে সোমবার ভোরে তাকে রূপগঞ্জ থানায় নিয়ে আসা হয়। একই সাথে ফয়সাল নামে আরও একজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। সেও নবম শ্রেণির শিক্ষার্থী ধর্ষণ মামলার আসামী।

তিনি আরও বলেন, এর আগে একই মামলায় আরও তিনজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তারা হলেন, তৌসিফ, আফজাল হোসেন এবং আবু সুফিয়ান সোহান। তাদেরমধ্যে আবু সুফিয়ান ফেনসিডিলসহ আশুগঞ্জ থানায় গ্রেফতার হলে তাকে আমরা ধর্ষণ মামলায় গ্রেফতার দেখানো জন্য প্রে-অর্ডার করি। বর্তমানে সে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা কারাগারে রয়েছে।

প্রসঙ্গত, ৯ জানুয়ারি দুপুরের দিকে নবম শ্রেণির ওই শিক্ষার্থীকে উপজেলার তারাবো গন্ধর্বপুর বাসস্ট্যান্ড এলাকা থেকে একটি মাইক্রোবাসে তুলে নিয়ে যায়। পরে রূপসী ও কর্নগোপ এলাকার পৃথক দুটি বাড়িতে দুদিন আটকে রেখে পালাক্রমে ধর্ষণ করে সংঘবব্ধ একটি চক্র। ধর্ষণ শেষে শুক্রবার দিবাগত রাত সাড়ে তিনটার দিকে স্কুলছাত্রীকে সিদ্ধিরগঞ্জের মৌচাক এলাকায় ফেলে দিয়ে যায়। বর্তমানে সে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি রয়েছে।

এ ঘটনায় ১১ জানুয়ারি ধর্ষণের শিকার স্কুলছাত্রী পিতা বাদী হয়ে রূপগঞ্জ থানায় তারাবো ছাত্রলীগের সহসভাপতিসহ ৪ জনকে এজাহার নামীয় ও অজ্ঞাত আরও কয়েকজনকে আসামী করে মামলা দায়ের করে। পুলিশ এদিনই অভিযান চালিয়ে পৌর ছাত্রলীগের সহ-সভাপতিসহ ৩ জনকে গ্রেফতার করেছে।

২০ জানুয়ারি, ২০২০/এসপি/এনটি

উপরে