NarayanganjToday

শিরোনাম

আসল পুলিশের হাতে ধরা খেল ‘নকল পুলিশ’


আসল পুলিশের হাতে ধরা খেল ‘নকল পুলিশ’

পুলিশের পোশাক পরে প্রাইভেটকার ছিনতাই করতে গিয়ে শাহিন নামে এক ‘ভুয়া পুলিশ’ আটক হয়েছে। বিক্ষুব্ধ জনতা গণধোলাই দিয়ে ফতুল্লা থানা পুলিশের হাতে তাকে সোপর্দ করে।

শনিবার (৪ জানুয়ারি) দুপুরের দিকে ফতুল্লার ভুইগড় এলাকা থেকে তাকে আটক করা হয়। পুলিশ জানিয়েছে তার কাছ থেকে দুটি খেলনার পিস্তল, ওয়াকিটকি উদ্ধার করা হয়েছে।

আটককৃত ‘ভুয়া পুলিশ’ শামীম (৪০) কুড়িগ্রাম জেলা উলিপুর গ্রামের মহসিন আলীর ছেলে।

ছিনতাইয়ের কবলে পড়া প্রাইভেটকার চালক দেলোয়ার হোসেন জানান, ফতুল্লা খান সাহেব ওসমান আলী ক্রিকেট ষ্ট্রেডিয়ামের সামনে ট্রাফিক পুলিশের পোশাক পরা দুইজন ও একজন সাদা পোশাক পড়া লোক গাড়ি থামাতে আমাকে সিগন্যাল দেয়। এতে গাড়ি থামাতেই পোশাক পরনের পুলিশ গাড়ির কাগজপত্র চায়। তাৎক্ষনিক কাগজপত্র দিলেও তারা বলে ‘এসবে ভূল আছে তোমাকে থানায় যেতে হবে’। এরপর তারা আমাকে পিছনের সিটে বসিয়ে ঢাকার দিকে গাড়ি নিয়ে রওনা দেয়। তখন সন্দেহ হলে আমি চিৎকার দেই। এতে গাড়িটি দ্রুত গতিতে চালিয়ে ভূইগড় বাস ষ্ট্যান্ডে গিয়ে একটি পিকআপ ভ্যানের পিছনে লাগিয়ে দেয়। এসময় গাড়িটির সামনের অংশ ধুমড়ে মুচড়ে যায়। তখন আবার চিৎকার করলে দ্রুত দুজন পালিয়ে যায় এবং আশপাশের লোকজন এসে একজনকে আটক করে গণধোলাই দেয়।

ফতুল্লা মডেল থানার ওসি আসলাম হোসেন জানান, ছিনতাইকারীদের কবলে পড়া প্রাইভেটকার (ঢাকা-মেট্রো-গ ৩৭-৯০৫০) চালক দেলোয়ারকে উদ্ধার করা হয়েছে। একই সময় পোষাক পড়নে একজন ভূয়া সার্জেন্টকে আটক করে তার কাছ থেকে কভারসহ একটি খেলনার পিস্তল একটি ওয়াকিটকি এবং যে গাড়িটি ছিনতাই করে নেয়ার চেষ্টা করেছিলো সে গাড়ির ভিতর থেকে পালিয়ে যাওয়া দুই ছিনতাইকারীর দুটি খেলনা পিস্তল, একসেট ট্রাফিক পুলিশের পোশাক একটি ওয়াকিটকি উদ্ধার করা হয়েছে। ছিনতাইকারীদের বিষয়ে আরও তদন্ত চলছে পরে বিস্তারিত জানানো হবে।

৪ জানুয়ারি,২০২০/এমএ/এনটি

উপরে